Uncategorized

Institute mpo news 2019

Education Minister said. Dipu Moni said that the announcement of private educational institution MPObiquity may come in the months to come. He said, last year an application for MPObiquity was called online through the form. Based on the information given on four indices of the requested institutions, the companies have been listed as eligible institutions. When asked about the number of eligible organizations, he said that the number is around 2500, he said that the education ministry examined the information data given by the institutions, with the help of the Ministry of Finance, the number of organizations being tried to get the maximum number of MPOs. Education Minister said this while interacting with media persons on different media in the Secretariat on Wednesday (April 10th).

The minister said, ‘We have prepared ourselves. Hopefully, I can announce the MPO bid in a month. ‘

চলতি অর্থ বছরে আরেক দফা বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত করা হবে। এর আগে ‘বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের জনবল কাঠামো ও এমপিও নীতিমালা-২০১৮’ সংশোধন করা হবে।

শিক্ষা মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির বৈঠকে এ তথ্য জানানো হয়েছে। কমিটির পক্ষ থেকে নীতিমালা সংশোধনের কাজ দ্রুত শেষ করার তাগিদ দেওয়া হয়েছে।

আজ রবিবার বিকেলে জাতীয় সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত ওই বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন কমিটির সভাপতি ডা. মো. আফছারুল আমীন। বৈঠকে কমিটির সদস্য শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী, মো. আব্দুল কুদ্দুস, ফজলে হোসেন বাদশা, মো. আবদুস সোবহান মিয়া ও মাহী বদরুদ্দোজা চৌধুরী এবং সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

MPO Inclusion Updates News November 2019

বৈঠকে জানানো হয়, ২০১৯-২০২০ অর্থ বছরে স্বীকৃতিপ্রাপ্ত নতুন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্তির লক্ষ্যে অর্থ বিভাগ হতে ৮৬৫ কোটি টাকা বরাদ্দ পাওয়া গেছে। চলতি অর্থ বছরে এ পর্যন্ত এক হাজার ৬৫৮টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে এমপিওভুক্ত করা হয়েছে। এ বাবদ বার্ষিক ব্যয় প্রায় ৪৫৬ কোটি ৩২ লক্ষ ১৮ হাজার টাকা। উক্ত ব্যয়ের পর আরও প্রায় ৪০৮ কোটি ৬৭ লক্ষ ৮১ হাজার টাকা অবশিষ্ট থাকবে। এ অবশিষ্ট অর্থ দিয়ে সংশোধিত নীতিমালার আলোকে যাচাই-বাছাই করে চলতি অর্থ বছরে আরও কিছু শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে এমপিওভুক্ত করা সম্ভব হবে।

কমিটি সূত্র জানায়, বিষয়টি নিয়ে আলোচনা শেষে বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এমপিও নীতিমালা সংশোধনে স্থায়ী কমিটির সদস্যবৃন্দের মতামত ও সুপারিশ অন্তর্ভুক্তির সুপারিশ করা হয়। সংশোধিত নীতিমালার আলোকে সর্বোচ্চ সংখ্যক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এমপিওভুক্ত করার নির্দেশনা দেওয়া হয়।

সূত্রঃ ডেইলি স্টার

Education Minister said, “Teachers and employees have been protesting for long time demanding MPhipi. We have already started working as MPO in importance of their issue.

He said, “The application has been collected from four organizations for MPO admission.” About 2,500 educational institutions have been listed.The minister said, “We will verify the information that has been given from the institutions.” If the information given by them will be announced, then 25,000 educational institutions will be announced jointly with MPO next month. Otherwise, if you get another company, you will get a problem. Therefore, it has been decided to declare all the eligible institutions simultaneously MPO.

Education Ministry has some obstacles, said Dr. Dipu Moni said, “If this reason is financial, then 25 percent MPO benefits may be given to new MPO-affiliated companies in the first phase. If it is not, 100 percent MPo will be provided.

Responding to a question, Education Minister Dipu Moni said, “I did not know the issue of independent IbtadeiMadrasa. Recently, teachers and employees of Ibtadei Madrasah sit in the streets for several days. Then I sat with their leaders and found their problems. They get a lot less salary – this is a lot of money.The minister said, ‘Independent Ibtadei Madrasah has been built in many parts of the country. There are also many teachers and students. It needs to be closed. Whether it is possible to bring separate Madrasas in the form of primary schools. If the government wants the new institution, then it will be done under such a way that no educational institution will be established. Besides, we will take a quick decision on how to ensure their rights in any method of independent madrasa teachers and employees.

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Close
Close